বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) বর্তমান কমিটির কার্যক্রম কেন অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

বিসিবির বার্ষিক সাধারণ সভার (এজিএম) বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে দায়ের করা রিটের শুনানি শেষে মঙ্গলবার এ আদেশ দেয়া হয়।

তবে এই আদেশের ফলে বিসিবির এজিএম চলতে কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবী।

বিচারপতি এস এম এমদাদুল হক ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

বিসিবির এজিএমের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রোববার দুপুরে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় বিসিবির সাবেক পরিচালক মোবাশ্বের হোসেনের পক্ষে রিটটি দায়ের করেন ব্যারিস্টার শফিক মাহবুব।

এর আগে এজিএম ও বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) বন্ধ চেয়ে বিসিবি ও জাতীয় ক্রীড়া পরিষদকে (এনএসসি) গত ১৭ সেপ্টেম্বর লিগ্যাল নোটিশ পাঠান স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন।

গঠনতন্ত্র পরিবর্তন না করেই নির্বাচনী কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এজিএম ও ইজিএমের উদ্যোগ নেয়ায় নোটিশটি পাঠানো হয়।

মোবাশ্বের হোসেনের দাবি, রায় অনুযায়ী বিসিবির বর্তমান পরিচালনা পরিষদের কোনো বৈধতা নেই সাধারণ সভা ঘোষণা করার। তারপরও তা করায় সাধারণ সভা ও বিশেষ সভাসহ বোর্ডের সব কার্যক্রম বন্ধের জন্য বিসিবি, এনএসসি সভাপতিসহ সাত ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠানের বরাবর তিনি এই নোটিশ পাঠান।