নারী শিক্ষার্থীদের চিকিৎসা সেবার সময়সূচি সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত সীমাবদ্ধ করে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।নারী শিক্ষার্থীদের নারী চিকিৎসক এবং পুরুষ শিক্ষার্থীদের পুরুষ চিকিৎসক দ্বারা সেবা প্রদানের বাধ্যবাধকতার কথা বলা হচ্ছে।কিন্তু,বিশেষ ক্ষেত্রে যদি কোন নারী শিক্ষার্থীর সন্ধ্যা ৬ টার পর চিকিৎসা সেবার প্রয়োজন হয়,সেক্ষেত্রে মহিলা অাবাসিক শিক্ষকের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক ঘোষণা করে নোটিশ প্রদান করেছে প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের মত এতবড় পরিসরে যেখানে লিঙ্গ বৈষম্য কমানোর কথা বলা হচ্ছে সেখানে এমন সিদ্ধান্ত মোটেও কাম্য নয়।

বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল সেন্টারের (ভারপ্রাপ্ত) প্রধান মেডিক্যাল অফিসার মো. আবু তৈয়ব বলেন, উপাচার্যের নির্দেশে রোগী দেখার এমন নিয়ম কার্যকর করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে একাধিক ছাত্রী বলেন, যদি আমাদের কেউ সন্ধ্যার পর গুরুতর অসুস্থ হয় তাহলে আমরা কি প্রভোস্টের জন্য বসে থাকব? এ সময় যদি কোনো অঘটন ঘটে তাহলে কে এর দ্বায়ভার নেবে?  একজন অপরাধী কে বাঁচানোর জন্যে অামরা ২২ হাজার প্রাণ জিম্মি হতে পারিনা

এর বিরোদ্ধে প্রতিবাদের দূর্গ গড়ে তুলতে আহবান জানিয়ে সাধারন শিক্ষার্থীরা  বৃহস্পতিবার সকাল ১১.৩০,শহীদ মিনারে  একাত্ম হওয়ার ঘোষনা দিয়েছে।

এই সর্ম্পকে সকল তথ্য পেতে শিক্ষার্থীরা একটি Event খুলেছে।  

Event এর লিঙ্ক পেতে এখানে ক্লিক করুন