চট্টগ্রামের প্রবেশ মুখ মীরসরাইয়ে প্রকৃতির এক অপার দান খৈয়াছড়া – ঝর্না । এখানে ছোট বড় প্রায় ১৩ টি ঝর্না আছে । স্থানীয় সূত্রে জানা যায় প্রতিদিন প্রায় ৩৫০-৪০০ জন দর্শনার্থী এই ঝর্না দেখতে আসে । তবে ছুটির দিন গুলোতে আসে প্রায় ১২০০-১৫০০ দর্শনার্থী ।

মীরসরাই পৌরসভা থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ধরে ২ কিলোমিটার দক্ষিনে , খৈয়াছড়া – ঝর্নার রাস্তা দিয়ে সিএনজিতে ৩.৫ কিলোমিটার পূর্ব দিকে গেলে পাহাড়ের প্রবেশ মূখ পাওয়া যায় । পাহাড় বেয়ে উপরে উঠতে উঠতে পর্যায়ক্যমে ঝর্নার দেখা মিলে ।

যাতায়াতের সামান্যখানি সমস‌্যা থাকলেও স্থানীয় খৈয়াছড়া ইউপি চেয়ারম্যানের প্রচেষ্টায় এক সময়ের নিরাপত্তাহীন ঝর্না এলাকা এখন পর্যটকদের জন‌্য পুরো নিরাপদ ।

যাতায়াতের একমাত্র বাহন সি এন জি । গোপন সূত্রে জানা যায় , স্থানীয় খৈয়াছড়া ইউপি চেয়ারম্যানের অবৈধভাবে বসানো ১ জন লোক প্রত্যেক সি এন জি থেকে প্রতিবার যাতায়াতে ১০ টাকা করে আদায় করে ।একদিকে মহাসড়কে সি এন জি চলাচল নিষিদ্ধ হওয়ায় চালকদের আয় রোজগার ভালো যাচ্ছেনা । তাই আমাদের ফ্রীডম বিডি ২৪ ডট কমের সাংবাদিক দেখে নাম প্রকাশ না করার শর্তে তাদের এ সমস্যার কথা জানান ।

তবে আশার দিক হলো সরকার ইতোপূর্বে খৈয়াছড়া – ঝর্না এলাকার উন্নয়নে বরাদ্দ দিয়েছে । দ্রুত সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা পেলে খৈয়াছড়া – ঝর্না সরকারের পর্যটন খাতে আয়ের পাশাপাশি হয়ে উঠবে দেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র ।