মুন্সীগঞ্জের সদর উপজেলায় স্ত্রীর ছোড়া মরিচ ও লবণমিশ্রিত গরম পানিতে দগ্ধ হয়ে চিকিৎসাধীন নাসির উদ্দিন (৫০) মারা গেছেন। আজ মঙ্গলবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে তাঁর মৃত্যু হয়।

 নাসির উদ্দিন সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের আদুইরাতলা এলাকায় স্ত্রী মিনু বেগমকে (৩৫) নিয়ে থাকতেন।

 নাসিরের ছোট ভাই শাহেব উদ্দিন বলেন, ‘১৪ সেপ্টেম্বর রাতে আমার ভাবি মিনু বেগম ঘুমন্ত অবস্থায় আমার ভাই নাসির উদ্দিনের শরীরে মরিচ, লবণমিশ্রিত ফুটন্ত গরম পানি ঢেলে দেন। রাতেই ভাইকে মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিতে বলেন। এরপর ভাইকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করি। সেখানকার চিকিৎসকরা জানান, গরম পানিতে শরীরের ৪১ শতাংশ পুড়ে গেছে। আজ সকালে ভাইয়ের মৃত্যু হয়।’

 এদিকে মরিচ ও লবণমিশ্রিত গরম পানি নিক্ষেপের ঘটনায় মিনু বেগমকে আসামি করে ১৫ সেপ্টেম্বর সদর থানায় হত্যাচেষ্টা মামলা করেন নাসিরের ভাই শাহেব উদ্দিন।

 মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসাইন জানান, এই ঘটনায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। আসামি মিনু বেগম পলাতক। পুলিশ তদন্ত করছে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রয়েছেন।