ইসলামী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের পরিবর্তনের পর এ সপ্তাহে বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকে রদবদল হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

আজ সোমবার দুপুরে সিলেটের লাক্কাতুড়া চা বাগানের গলফ ক্লাব মাঠে বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়ন সিলেট ভ্যালি আয়োজিত আলোচনা সভা শেষে অর্থমন্ত্রী এ কথা জানান।

চা শিল্পের উন্নতি হয়েছে উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে চায়ের চাহিদা অনুযায়ী এ বছর উৎপাদন হয়েছে। তবে তা প্রতিবছর থাকলে আমদানির প্রয়োজন নেই। এ জন্য আরো কয়েক বছর দেখতে হবে, বর্তমান সময়ে আমদানি বন্ধ করা হবে না।

শিক্ষা ও চা শ্রমিকদের উন্নয়নে সিলেটে ৮০ বছর পর একটি পূর্ণাঙ্গ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে ১০ শতাংশ চা শ্রমিকদের জন্য কোটা রাখা হয়েছে। তার পরও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ২৫ শতাংশের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে।

সভায় রাজু গোয়ালার সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন জাতিসংঘের সাবেক স্থায়ী কমিটির সদস্য এ কে আবদুল মোমেন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরীসহ অনেকে।

এর আগে ঢাকায় অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘ইসলামিক ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (আইডিবি) চাপে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশের পরিচালনা পর্ষদে পরিবর্তন আনা হয়েছে। এই পরিবর্তনের ফলে ব্যাংকটির উন্নয়ন ব্যাহত হবে না।’ আজ সিলেটে বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের পরিবর্তনের কথা জানিয়েছেন তিনি।

গত বৃহস্পতিবার ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড ও ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের নেতৃত্বে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়। পরিচালনা পর্ষদের সভায় ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে আরাস্তু খান নির্বাচিত হন। সভায় মেজর জেনারেল (অব.) ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মতিনকে এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান, ড. মো. জিল্লুর রহমানকে অডিট কমিটির চেয়ারম্যান এবং মো. আবদুল মাবুদকে রিস্ক ম্যানেজমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান নির্বাচিত করা হয়।